Prime Minister's Office Tejgaon, Dhaka-1215
Governance Innovation Unit
Prime Minister's Office
Dhaka, Bangladesh
 

বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (Annual Performance Agreement) বিষয়ক প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা

১. মন্ত্রণালয়/ বিভাগের আওতাধীন অধিদপ্তর/ সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দের প্রশিক্ষণ/ কর্মশালা

গত ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ৪৮ টি মন্ত্রণালয়/ বিভাগের কর্মকর্তাগণকে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছিল। এর ধারাবাহিকতায় ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৩৬ টি মন্ত্রণালয়/ বিভাগের আওতাধীন ১০০ টি অধিদপ্তর/ সংস্থার ৪ শতাধিক কর্মকর্তাবৃন্দকে ১০ টি ব্যাচে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। উক্ত প্রশিক্ষণের শিরোনাম ছিলো ‘Assimilation of Sustainable Development Goals (SDGs) in Government Performance Management System (GPMS)’. এখানে উল্লেখ্য, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বা Annual Performance Agreement (APA) সরকারি কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি (GPMS) এর একটি প্রধান অংশ। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (Sustainable Development Goals) অর্জনে APA এর কাঠামোকে কিভাবে ব্যবহার করতে হবে সেটিই এ প্রশিক্ষণের মূল বিষয়বস্তু ছিলো। যে সমস্ত সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ উক্ত প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন, তার একটি তালিকা নিম্নে দেয়া হলোঃ

ক্রমিক মন্ত্রণালয়/ বিভাগ অধিদপ্তর/ সংস্থা সংস্থার সংখ্যা
১.

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়

  1. বাংলাদেশ কর্মচারি কল্যাণ বোর্ড (বিকেকেবি)

  2. মুদ্রণ ও প্রকাশনা অধিদপ্তর

২.

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়

  1. ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর

  2. পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর

  3. স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  4. স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর

৩.

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

  1. বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর

  2. মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

৪.

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়

  1. প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

৫.

কৃষি মন্ত্রণালয়

  1. কৃষি বিপণন অধিদপ্তর

  2. কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

  3. বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

  4. বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন

  5. সিড সার্টিফিকেশন এজেন্সী

৬.

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়

  1. বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন

  2. বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ

৭.

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়

  1. অফিস অব দি রেজিস্ট্রার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ এন্ড ফার্মস

  2. আমদানি ও রপ্তানি নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

  3. জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর

  4. ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)

  5. বাংলাদেশ রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরো

৮.

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ

  1. বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ

  2. বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন

  3. সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর

৯.

খাদ্য মন্ত্রণালয়

  1. খাদ্য অধিদপ্তর

১০.

শিক্ষা মন্ত্রণালয়

  1. কারিগরী শিক্ষা অধিদপ্তর

  2. মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর

  3. শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর

১১.

বিদ্যুৎ বিভাগ

  1. ডেসকো

  2. ঢাকা বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানি লিমিটেড

  3. পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড

  4. পাওয়ার সেল

  5. বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড

১২.

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ

  1. খনিজ সম্পদ উন্নয়ন ব্যুরো

  2. তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি

  3. বাংলাদেশ তৈল, গ্যাস ও খনিজ কর্পোরেশন

  4. বিস্ফোরক অধিদপ্তর

১৩.

পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়

  1. পরিবেশ অধিদপ্তর

  2. বন অধিদপ্তর

  3. বাংলাদেশ বনশিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশন

১৪.

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়

  1. প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর

  2. মৎস্য অধিদপ্তর

  3. বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন

১৫.

অর্থ বিভাগ

  1. অফিস অফ দি কন্ট্রোলার জেনারেল অফ একাউন্টস

  2. দ্য সিকিউরিটি প্রিন্টিং কর্পোরেশন(বাংলাদেশ) লিঃ

১৬.

অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ

  1. জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

১৭.

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ

  1. ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ

১৮.

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়

  1. খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

  2. গণপূর্ত অধিদপ্তর

  3. চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

  4. জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ

  5. নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর

  6. রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)

  7. রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

  8. স্থাপত্য অধিদপ্তর

১৯.

শিল্প মন্ত্রণালয়

  1. পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর

  2. প্রধান বয়লার পরিদর্শকের কার্যালয়

  3. বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন

  4. বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন

  5. বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন

  6. বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন

২০.

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়

  1. পাট অধিদপ্তর

  2. বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশন

  3. বাংলাদেশ বস্ত্র কারখানা কর্পোরেশন

  4. বস্ত্র পরিদপ্তর

২১.

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়

  1. কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শকের কার্যালয়

  2. শ্রম পরিদপ্তর

২২.

আইন ও বিচার বিভাগ

  1. নিবন্ধন পরিদপ্তর

২৩.

ভূমি মন্ত্রণালয়

  1. ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর

  2. ভূমি সংস্কার বোর্ড

২৪.

স্থানীয় সরকার বিভাগ

  1. স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর

  2. খুলনা ওয়াসা

  3. চট্টগ্রাম ওয়াসা

  4. জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর

  5. ঢাকা ওয়াসা

২৫.

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ

  1. সমবায় অধিদপ্তর

  2. বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি)

২৬.

পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ

  1. বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো

২৭.

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ

  1. বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশনস কোম্পানি লিমিটেড

  2. বাংলাদেশ ডাক বিভাগ

২৮.

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ

  1. তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর

  2. বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)

  3. বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ

২৯.

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়

  1. ওয়াকফ প্রশাসক

  2. বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন

  3. বাংলাদেশ হজ্জ্ব অফিস

৩০.

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়

  1. চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ

  2. বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ

  3. বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশন

  4. বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন

  5. মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ

  6. সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তর

৩১.

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়

  1. সমাজসেবা অধিদফতর

৩২.

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়

  1. মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর

৩৩.

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়

  1. বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড

  2. বাংলাদেশ হাওড় ও জলাভূমি উন্নয়ন বোর্ড

৩৪.

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়

  1. ক্রীড়া পরিদপ্তর

  2. যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর

৩৫.

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়

  1. জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো

৩৬.

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়

  1. দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর

সর্বমোটঃ

১০০

 
উল্লিখিত অধিদপ্তর/ সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দকে প্রশিক্ষণ প্রদানের প্রাক্কালে অংশগ্রহণকারীবৃন্দের অনেকেই তাঁদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তথা সংস্থার প্রধানগণকে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির (APA) প্রক্রিয়ার সাথে আরো সম্পৃক্ত করার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন। অংশগ্রহণকারীবৃন্দ তাঁদের সংস্থা প্রধানগণকেও এ সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ/ কর্মশালায় আমন্ত্রণ জানানোর জন্য জিআইইউকে অনুরোধ করেন। 
এ অনুরোধের যথার্থতা অনুভব করার প্রেক্ষিতে এছাড়া উল্লিখিত অধিদপ্তর/ সংস্থার প্রধানগণের উপস্থিতিতে ‘Implementing SDG through GPMS: A Leadership Approach’ শীর্ষক কর্মশালা আয়োজন করা হয়। কর্মশালার পূর্বেই সংস্থা প্রধানগণের নিকট উপস্থাপনার বিষয়বস্তু অত্যন্ত স্পষ্টভাবে ব্যাখ্যা করা হয়। কর্মশালাকে ফলপ্রসু করার স্বার্থে উপস্থাপনার বিষয়বস্তু সম্পর্কিত একটি প্রশ্নমালা প্রণয়ন করে সংস্থা প্রধানগণের নিকট প্রেরণ করা হয়। প্রশ্নমালাটি নিম্নরূপ

অধিদপ্তর/ সংস্থা প্রধানগণের উপস্থাপনার বিষয়বস্তুঃ

  1. মন্ত্রণালয়/ বিভাগের সাথে আপনার প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (APA) বিষয়ে একটি সংক্ষিপ্তসার উপস্থাপন করুন। (ভিশন, মিশন, কৌশলগত উদ্দেশ্যসমূহ, উল্লেখযোগ্য অর্জন, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা, কার্যক্রমের সংখ্যা, কর্মসম্পাদন সূচকের সংখ্যা ইত্যাদি)

  2. বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (APA) আপনার প্রতিষ্ঠানের কার্যসম্পাদনে কোন ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারবে বলে আপনি মনে করেন কি? যদি রাখতে পারে বলে মনে করেন, তবে আপনার বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি থেকে কিছু উদাহরণ দিয়ে ব্যাখ্যা করুন। (যেমন, কোন বিশেষ কার্যক্রমে বিগত বছরের প্রকৃত অর্জনের তুলনায় ২০১৫-১৬ অর্থবছরে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার (target) পরিমাণ কি প্রকৃতপক্ষে বৃদ্ধি পেয়েছে? যদি না বৃদ্ধি পেয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে এর কারণ হিসেবে আপনি কি মনে করেন?)

  3. . আপনি কি মনে করেন, আপনার প্রতিষ্ঠানের সকল গুরুত্বপূর্ণ কৌশলগত উদ্দেশ্যসমূহ APA তে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে? যদি না হয়ে থাকে, তবে যে সমস্ত উদ্দেশ্যসমূহ অন্তর্ভুক্ত হয়নি, সেসব উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে আপনার পরিকল্পনা কী?

. বাধ্যতামূলক কৌশলগত উদ্দেশ্যসমূহ (Mandatory Strategic Objectives) আপনার সংস্থার  কর্মসম্পাদনে গুণগত উন্নয়নে কোন ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে কী? আপনি এতে কোন সংযোজন/ বিয়োজন করেছেন কি?

  1. আপনার প্রতিষ্ঠানের বিদ্যমান পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন কাঠামোর সাথে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি কে সম্পৃক্ত করার বিষয়ে আপনার পরিকল্পনা কী?

  2. আপনার প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা/ কর্মচারীবৃন্দের নিকট বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (APA) তথা সরকারি কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি (GPMS) ব্যাপকভাবে পরিচিত করার জন্য আপনার পরিকল্পনা কী?

  3. আপনার প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (APA) তে পদ্ধতির (process) চেয়ে ফলাফলের (output) উপর অধিক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে বলে মনে করেন কি? সেক্ষেত্রে কিছু উদাহরণ উপস্থাপন করুন।

  4. আপনার অধীনস্ত দপ্তরসমূহ তথা মাঠ পর্যায়ের দপ্তরসমূহকে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে আপনার পরিকল্পনা কী?

  5. বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির বিদ্যমান কাঠামোর কী কী দুর্বলতা/ অসম্পূর্ণতা/ ত্রুটি আপনার দৃষ্টিগোচর হয়েচ?

         খ. উক্ত দুর্বলতা/ অসম্পূর্ণতা/ ত্রুটি দূর করার ক্ষেত্রে কী করণীয় বলে আপনি মনে করেন?

  1. আপনার সংস্থা কোন রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হলে আপনার প্রতিষ্ঠানে মুনাফা বৃদ্ধি অথবা ক্ষতি কমানোর সাথে সংশ্লিষ্ট কি কি outcome/ activity/ performance indicator রয়েছে?

  2. টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (Sustainable Development Goal-SDG) অর্জনে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির কাঠামোকে কিভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে বলে আপনি মনে করেন? এক্ষেত্রে আপনার প্রতিষ্ঠানের বর্তমান APA তে SDG১৭ টি goal এর আওতাধীন ১৬৯ টি target এর সাথে সম্পৃক্ত কার্যক্রম (activity) ও কর্মসম্পাদন সূচক (performance indicator) সমূহ উল্লেখ করুন।

  3. বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি কাঠামোকে অধিকতর ফলপ্রসু করার জন্য কী উদ্যোগ গ্রহণ করা যেতে পারে সে বিষয়ে আপনার মূল্যবান মতামত প্রদান করুন।

সংস্থা প্রধানগণের সমন্বয়ে আয়োজিত প্রথম কর্মশালাটিতে তাঁরা মত প্রকাশ করেন যে, এ ধরণের কর্মশালা তথা বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির কাঠামোকে আরো ফলপ্রসু করার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/ বিভাগের সিনিয়র সচিব/ সচিব মহোদয়ের উপস্থিতি নিশ্চিতকরণ করা প্রয়োজন। তাঁদের এ মতামতের প্রেক্ষিতে একই শিরোনামে আরো দুইটি কর্মশালা আয়োজন করা হয়। আয়োজিত এ কর্মশালাসমূহে ৬০ টি সংস্থার প্রধান ও ২৫ টি মন্ত্রণালয়/ বিভাগের সিনিয়র সচিব/ সচিববৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
২. প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতাধীন সংস্থাসমূহের কর্মকর্তাবৃন্দের প্রশিক্ষণ
অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সংস্থাসমূহের পাশাপাশি জিআইইউ ২০১৫-১৬ অর্থবছএর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতাধীন ৫ টি সংস্থা (বাংলাদেশ রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ কর্তৃপক্ষ, এনজিও বিষয়ক ব্যুরো, বিনিয়োগ বোর্ড) ও আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর কর্মকর্তাবৃন্দের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। এ প্রশিক্ষণের শিরোনাম ছিলো ‘Effective Implementation of GPMS: A Holistic Approach’. প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দও এ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। ২ টি ব্যাচে সম্পন্ন এ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা ছিলো ৭০ জন।
৩. অন্যান্য মন্ত্রণালয়/ বিভাগ/ সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দের প্রশিক্ষণ
ক. শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) এর সাথে এর অধীনস্থ শিল্প কারখানাসমূহের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষরের লক্ষ্যে চেয়ারম্যান, বিসিআইসি জিআইইউকে তাঁর প্রতিষ্ঠানসমূহের কর্মকর্তাবৃন্দের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য সহযোগিতার অনুরোধ করেন। এর প্রেক্ষিতে জিআইইউ ঘোড়াশালে অবস্থিত ট্রেনিং ইনস্টিটিউট ফর কেমিক্যাল ইন্ড্রাস্ট্রিজ (TICI) এ দুইট টি ২ (দুই) দিনব্যাপী কর্মশালার মাধ্যমে কর্মকর্তাবৃন্দের প্রশিক্ষণ প্রদান করেন। এ কর্মশালাটির শিরোনাম ছিলো ‘Effective Formulation of Annual Performance Agreement (APA)’.
খ. এছাড়া ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর,  ন্যাশনাল একাডেমী ফর এডুকেশন এন্ড ম্যানেজমেন্ট (NAEM) সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/ বিভাগ/ সংস্থা কর্তৃক আয়োজিত প্রশিক্ষণ/ কর্মশালায় জিআইইউ’র কর্মকর্তাবৃন্দ রিসোর্স পারসন হিসেবে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বিষয়ক সক্ষমতা বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছেন।